রবিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০০৮

ইশকুল, ফ্লুরোসেন্ট ও রোদসঙ্গম;

ফ্লুরোসেন্ট


স্টেডিয়াম পেট চিরে দুজন বেরিয়ে এলাম
তুমিয়ামি বেশ গাঢ় হয়ে হাঁটি
পা মেলেনা, মাঝের দুরত্বটাও বাড়ে, কমে
তবে রচিত-পথ
ফ্লুরোসেন্ট সৌরভ মেখে তীর্যক দাঁড়িয়ে
সেখানে রিকশাও রূপবতী হয়ে যায়।






ইশকুল


সারবাঁধা দেশলাই-সব,
স্কুলগামী ভ্যানে চড়ে ঝাঁকি খেতে খেতে
ভাঙাচোরা মিউনিসিপ্যাল্‌টি পেরিয়ে,
কাশবন ঘিরে বসে পড়ে।
ঘাসেরাও সেখানে মাথা-উঁচু করে
শতবর্ষী বটের গায়ে চকবোর্ড থেকে
কষ্ট করে লেখাগুলো তোলে,
গুটি গুটি পিঁপড়া-অক্ষরে।






রোদসঙ্গম;


রোদ হেসে দৌড়ে কপাটি দিয়ে
মেঘের সাথে
শুয়ে পড়লে
অভিমানে নদ খুব জোরালো আওয়াজে জেগে ওঠে
উদ্দাম সঙ্গমে
মেঘের শরীরে
টান টান সুখ
জমা পড়ে
গ্রীকাক্ষর সন্তর্পণে এলোমেলো হয়ে যায়।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

এই গ্যাজেটে একটি ত্রুটি ছিল