বুধবার, ৭ জানুয়ারী, ২০০৯

রিপুহত্যাযজ্ঞ

১.
...দুপুর গড়িয়ে চলে এলেও ঘেরা-পর্দা ঘরে সবুজ-আঁধার, বিনম্র; চলাচল করে। আমি ওঘর থেকে এলোমেলো ঘুম পায়ে এসে একটু হকচকিয়ে যাই, দেখি অন্ধকারের সবুজ মায়া তখনও যা টেবিলের প্রান্তে লেগে ছিল। আমাদের ঘরের একাকী রসনা-টেবিলে কিছু বোনা-কাপড়ের ম্যাট চকচকে-কাঁচ গেলাশেরা মিনারেল বোতলে ভরা মমতা-জল উদভ্রান্ত আর বিষন্ন বসে থাকে। এ ঘরে এলেই তারা সবাক-সশব্দ হয়ে ওঠে, কিশোরীর ঋতুমন্ত হয়ে ওঠার মতো তাদের কোমল ব্রীড়া, গোপন কান্না আমার নখাগ্রে মিশে যেতে থাকে। আমি ইতস্তত দ্রুততায় ঈর্ষা-কাম-ক্রোধ-লোভঃ প্রথাগত রিপুসমূহ লুকিয়ে ফেলি তারা ভয় পেতে পারে ভেবে...


২.
...সারাদিন বাইরে ঘুরে আমি রিপুগুলো ঘষে ধারালো ক্ষুরধার করেছি হা হা করে হেসেছি অস্ত্র বাগিয়ে চিরেছি বাগান, ফুল আর কোমল ঘাস। ঘরে ফিরে ক্ষুধার্ত দাঁতাল শুয়োরের মত ঘোঁৎ ঘোঁৎ করে দরোজা-জানালা ভাঙচুর করি ধূলো ওড়ানো কার্পেট চষে গেরস্তের জামা, চাকরের চুরি করা ট্যাঁকে গোঁজা টাকা, ছেলেটার টিফিনের বাক্স আছড়ে ভাঙতে থাকি। ভুল করে বেখেয়াল উন্মত্ততায় যেই এঘরে এলাম, রসনা-টেবিলের কিশোরী-তৈজস আমাকে নিরস্ত্রনির্মূলনখদন্তহীন করে দিল!...

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

এই গ্যাজেটে একটি ত্রুটি ছিল