মঙ্গলবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০০৮

প্রশ্নবোধক-চরিত


প্রশ্নবোধকেরা বড়ো উচাটন, দুপুর ঢলে পড়ছে
সভায় গুঞ্জন-মৃদু, ফিসফাস, চুপচাপ আবার
কালো, মোটা, শ্বেতীপড়া নানান রকম
প্রশ্নবোধকেরা জড়ো হয়ে বসে আছে বেঞ্চিতে
কাঠের খটমটে বেঞ্চিটা বড়ো গায়ে বিঁধে
তবুও সহিষ্ণু প্রশ্নবোধক-দল, শব্দগুচ্ছ দানা বাঁধে।


বড়োকর্তা দাঁড়ি স্টেজ ভেঙে দিলে, ইতস্ততঃ বিভ্রান্ত
বালক, বৃদ্ধ, শিশু-প্রশ্নেরা ক্রমশই ক্ষুদ্ধ হয়ে ওঠে-
এ কেমনধারা বিচার! প্রহসন-নির্যাতন মানি না!
চিৎকার জন্মেই দাঁড়ির ভ্রুকূটিতে ম্লান হয়,
মিউ মিউ বেড়ালের মতো ঘরকোণে সরে যায়।


"অতীতে এহেন স্পর্ধা-সঙ্কুল বাড় বাড়েনি" -
ভেবে গম্ভীর মাথা নাড়ে দাঁড়ি, সব দোষে দোষারোপ
অস্থির নেতাটাকে, চক্রাকার মাথা বাঁকিয়ে ক্রূরহাসি মুখে মাখা।
খেপে গিয়ে সশব্দে হাঁকেন দাঁড়ি, "আজ বিচারে
যাবজ্জীবন দিলাম তোমাদের!"
বিমূঢ় হতাশ নেতা-প্রশ্নিকের পিছু পিছু, মৃদুগুঞ্জনে সকলে কুঠুরি-বন্দী হয়।।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

এই গ্যাজেটে একটি ত্রুটি ছিল