সোমবার, ৭ জুলাই, ২০০৮

বাইনারী আবেগ আর ঝিঁ ঝিঁ পোকারা

- আছো?
- জ্বি, আছি।

কেব্‌ল দিয়ে বাইনারি আবেগ ছোটে, এক আর শূন্যেরা
একে অপরের ঘাড়ে চেপে সাঁ সাঁ দৌড়ে বেড়ায় দুদ্দাড়।

- আমি ঘুমাবো, খুব ক্লান্ত। তুমি জেগে র'বে?
- হুঁ, আরো কিছুখন, আরেকটু সময়, বসে থাকি নিনির্মেখ।
- কি করবা জেগে জেগে?
(পাঁজর ফুঁড়ে লোহিত অশ্রু পড়ে)
- আমার রাত তো স'বে শুরু হলো! প্রেমিক শর্বরী।
- এভাবে রাত জেগে জেগে তুমি একদিন বড় একটা
ঝামেলায় পড়বে? ঈষৎ অনুযোগে গাঢ় হয় স্বর।
- এই বেশ ভাল লাগে, অযথা ভেবে মরো, আমাকে নিয়ে!
মর্চে পড়া শরীরে বুলাতে চাও স্প্রে-পেইন্টের ব্যানার?
- ধুর! তুমি যাচ্ছেতাই! আমি কি তাই বলেছি নাকি?
রাগ লাগে কথা শুনে তোমার, আমার খেয়ে কাজ নেই,
তোমার মাথার হারানো স্ক্রু খুঁজে মরি আর কি!
- বাহ্‌! ভালোই দিয়েছ রূপক, আমাকে চিনছি আজ তোমার চোখে।
- একটু মন দিয়ে কথাগুলো শুনলে কী হয়?
মনে হয় কানে তুলো গুঁজে বসে আছে নির্বোধ।
আমার সব কথা ফিরে আসে নিস্ফল!
- না না, শুনি আমি খুব মন দিয়ে কথাগুলো, মনে তুলে রাখি
আলতো করে গুছিয়ে, বড় দামি যে এই যত্নটুকু - !
দেখে নিও ঠিক একদিন গুছিয়ে নিব সব,
নিয়মে বেঁধে রশিতে কষে আঁটবো যত বিপন্ন আবেগ!

তথৈবচ বাইনারি বিটেরা গতি কমিয়ে দেয়, এলোমেলো
ভাবনা আর টুকরো কথা জমা পড়ে খোপে খোপে,
অবশেষে চলে যায় সে, ক্লান্ত। অপরজনের পাশে জমে
খুশকির মত বিরক্তিকর দুঃখেরা, আপন বলয়ে।
বাইরে তখন ঝিঁঝিঁরা তুলে সিম্ফোনির সুর।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

এই গ্যাজেটে একটি ত্রুটি ছিল