সোমবার, ২৮ জুলাই, ২০০৮

সুখ ও দুঃখের নির্বাণ আর কবাটবাঁধা ঘর

পরাবৃত্তিক গতিপথে
যে জল বেরিয়ে পড়ে
তার মতই ছড়ছড় করে নির্গত হয়
সুখেরা, সশব্দে ছড়িয়ে ছিটিয়ে
ভিজিয়ে চারিদিক।

হিমধরা কবাট-বদ্ধ ঘরে,
পেছনে ছিটকিনি আটকে দিলে,
ধরে রাখা শ্বাস বা টানটান মেরুদণ্ড ছেড়ে,
নিমগ্ন হতে পারি নিজের সাথে।
চারিদিকে হিমেরা ত্বকে মিশে যায়
কালো বেড়ালের মত জ্বলজ্বলে তীক্ষ্ণতায়
শিউরে কাঁপুনি একটু,
অতঃপর নির্বাণ!

জলভার নেমে গেলে,
টুপ করে দু'এক অযাচিত দুঃখেরা
নেমে আসে চকচকে মার্বেলে,
থ্যাবড়ানো বিন্দু কেবলই
ছিটকানো অপ্রাকৃত ছবি।
সরলরৈখিক-নমন ঘটে শেষবিন্দুর,
একাকী ছিল সে।

নির্গত অতীত ডাকে পেছনে
সামনে শুধুই ফর্সা জড় কবাট,
খুলে বেরোলেই কবিতা শেষ
সুখেরা হারানো গহ্বরে, কোন অতলে,
পাদানিতে পড়ে রয় কতক দুঃখ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

এই গ্যাজেটে একটি ত্রুটি ছিল