রবিবার, ২০ জুলাই, ২০০৮

ত্রয়ী

কাগজে মোড়ানো অতীত


কাগজের এক মোড়কে জড়িয়ে নিলাম তখন-
খামসমূহ, হলমার্ক-আর্চির
উপহার-বার্তাদের।
আপন আত্মারা এককালে
কত ভালবেসে
আদর, মমতা, স্নেহ আর প্রেমে ডুবিয়ে
লিখেছিল অক্ষর ঐ
কাগজগুলোয়-
তাদের পাঠানো এত এত ভালবাসা,
আজ কাগজে মুড়িয়ে নিলাম-
চিলেকোঠার এক কাঠের বাক্সে রেখে দিলাম।








লাল পিঁপড়া


আমার চোখের নীচে আজ একটা পিঁপড়া
গুটিগুটি হেঁটে যেতে যেতে আচমকা
কুট করে কামড়ে দিয়েছে।
লাল পিঁপড়ার লাল রং ছড়িয়ে পড়েছে
চামড়া জুড়ে- ধমনী বেয়ে বার্তা চলেছে
হৃদয়-ফুসফুস-প্লীহা
আহা! কত দূর্দান্ত পিঁপড়ার আদর!






মাননীয় স্যার


মাননীয় স্যার, শিক্ষক, আশা করি ভাল আছেন, বেশ।
আমি অমুক, ব্যাচ তমুক, রোল সেমুক, নিতান্তই তুচ্ছ
অগ্রাহ্য-করার-মত বিস্তারিত পরিচয় ( যা দিয়ে আপনি
আমায় চিনবেন না স্বভাবতই )। আমাকে একটা সমাধান
আশা করি আপনি দিবেন, তাই সমস্যাটা নিয়ে এসেছি।
সাথে সংযুক্ত কাগজে যার বর্ণনা করেছি পুঙ্খানুপুঙ্খ।
বিনীত নিবেদন, সমাধান জানাবেন, পাওয়ামাত্রই,
নিবেদন ইতি, আপনার একান্ত অনুগত, অমুক অপাঙক্তেয়।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

এই গ্যাজেটে একটি ত্রুটি ছিল